Category Archives: সবর – ধৈর্যধারণ

খাদীজা (রা) ছিলেন একজন অতুলনীয় নারী

ইসলাম গ্রহণের পর হযরত খাদীজা তাঁর সকল ধন-সম্পদ তাবলীগে দ্বীনের লক্ষ্যে ওয়াকফ করেন। রাসূল সা. ব্যবসা-বাণিজ্য ছেড়ে আল্লাহর ইবাদাত এবং ইসলাম প্রচারে আত্মনিয়োগ করেন। সংসারের সকল আয় বন্ধ হয়ে যায়। সেই সাথে বাড়তে থাকে খাদীজার দুশ্চিন্তা। তিনি ধৈর্য ও সহনশীলতার সাথে সব প্রতিকূল অবস্থার মুকাবিলা করেন। আল–ইসতিয়াব গ্রন্থে বর্ণিত হয়েছে, ‘মুশরিকদের প্রত্যাখ্যান ও অবিশ্বাসের কারণে রাসূল সা. যে ব্যথা অনুভব করতেন, খাদীজার কাছে এলে তা দূর হয়ে যেত। কারণ, তিনি রাসূলকে সা. সান্ত্বনা দিতেন, সাহস ও উৎসাহ যোগাতেন। তাঁর সব কথাই তিনি বিনা দ্বিধায় বিশ্বাস করতেন। মুশরিকদের সকল অমার্জিত আচরণ তিনি রাসূলুল্লাহর সা. কাছে অত্যন্ত হালকা ও তুচ্ছভাবে তুলে ধরতেন।’

[আসহাবে রাসূলের জীবনকথা – প্রথম খণ্ড – ড. আব্দুল মা’বুদ]

Advertisements

কারো দুর্ব্যবহারে কষ্ট পেলে নিজেকে রক্ষা করার জন্য চরম ধৈর্যধারণ করো

​”মানুষের সাথে সুন্দর ও অমায়িক ব্যবহার করো এবং তাদের দুর্ব্যবহারে কোন কষ্ট পেলে নিজেকে রক্ষা করার জন্য চরম ধৈর্যধারণ করো যেন তুমি বধির, মূক ও অন্ধ; তাদের অসদাচরণকে তুমি অনুভবই করতে পারো নাই।”

— হেলাল ইবনে আলা’ রক্কী

[বিদায়াতুল হিদায়াহ : ইমাম আল-গাজ্জালী , প্রকাশক: দারুল কিতাব, পৃ-১১৭]​

তিনটি গুণাবলী সবরের অন্তর্ভুক্ত

“তিনটি গুণাবলী সবরের (ধৈর্য) অন্তর্ভুক্ত: নিজের দুর্দশার ব্যাপারে কথা না বলা, নিজের কষ্ট (সম্পর্কে কথা না বলা) এবং নিজের প্রশংসা না করা।”

— ইমাম সুফিয়ান আস-সাওরি

[আল-হিলইয়াহ, ৬/৩৮৯]

আমাদের জীবনের সবচাইতে স্বাস্থ্যকর উপাদান হচ্ছে সবর

sabr

“আমাদের জীবনের সবচাইতে স্বাস্থ্যকর উপাদান হচ্ছে সবর (ধৈর্য)।”

— উমার ইবনুল খাত্তাব (রাদিয়াল্লাহু আনহু)

[হিদায়াতুল আউলিয়া]

সুন্দর ধৈর্য হলো অভিযোগ না রেখে ধৈর্য্ধারণ করা

“সুন্দর বিদায় হলো ক্ষতি না করে বিদায় নেয়া, সুন্দর ক্ষমা হলো বকা না দিয়ে ক্ষমা করা, সুন্দর ধৈর্য হলো অভিযোগ না রেখে ধৈর্য্ধারণ করা।”
— ইমাম ইবনে তাইমিয়া (রাহিমাহুল্লাহ)

যে ব্যক্তি ধৈর্যধারণ করতে পারবে সে কখনো সফলতা থেকে বঞ্চিত হবেনা

1grave

“যে ব্যক্তি ধৈর্যধারণ করতে পারবে, সে কখনো সফলতা থেকে বঞ্চিত হবেনা।
হয়তবা সফল হবার জন্য তার একটু বেশি সময় লাগতে পারে।”

—– আলী ইবনে আবু তালিব (রাদিয়াল্লাহু আনহু)