Tag Archives: islamic quotes bangla

দশটি ব্যাপারে তোমাদের অন্তর মরে গেছে

একদিন ইব্রাহিম ইবনে আদহাম (রহিমাহুল্লাহ) বসরা শহরের একটি বাজারের পাশ দিয়ে যাচ্ছিলেন। লোকজন তার পাশে সমবেত হয়ে জিজ্ঞাস করল: হে আবু ইসহাক ! আল্লাহ সুবহানাহু তা’আলা কুরআনে বলেন: “আমাকে ডাক, আমি তোমাদের ডাকে সাড়া দিব।” কিন্তু আমরা অনেক দিন ধরে দোয়া করছি অথচ আল্লাহ আমাদের দোয়ার সাড়া দিচ্ছেন না।

ইব্রাহিম বিন আদহাম বললেন, “ওহে বসরার অধিবাসী, দশটি ব্যাপারে তোমাদের অন্তর মরে গেছে:

১) তোমরা আল্লাহর সম্পর্কে জানো কিন্তু তার প্রতি তোমাদের কর্তব্যগুলো পালন করো না।
২) তোমরা কুরআন পড়ো ঠিকই কিন্তু সে অনুযায়ী আমল কর না।
৩) তোমরা দাবী কর যে রাসূলুল্লাহকে (সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম) ভালবাসো কিন্তু তার সুন্নাতকে অবহেলা করো।
৪) তোমরা নিজেদেরকে শয়তানের শত্রু হিসাবে দাবী কর কিন্তু তোমরা তারই পদাংক অনুসরন কর।
৫) তোমার জান্নাতে যেতে উদগ্রীব কিন্তু তার জন্য পরিশ্রম করো না।
৬) তোমরা জাহান্নামের ভয়ে আতঙ্কিত কিন্তু পাপের ম্যাধমে প্রতিনিয়ত তার নিকটবর্তী হচ্ছো।
৭) তোমরা স্বীকার করো মৃত্যু অনিবার্য কিন্তু তার জন্য নিজেকে প্রস্তুত কর না।
৮) তোমরা সবসময়ে অন্যের দোষ বের করতে সচেষ্ট কিন্তু নিজের দোষ-ত্রুটির ব্যাপারে খেয়াল রাখো না।
৯) তোমরা আল্লাহর নিয়ামত উপভোগ করো কিন্তু তার জন্য শুকরিয়া আদায় কর না।
১০) তোমরা মৃতের লাশকে দাফন করো কিন্তু তা থেকে শিক্ষা গ্রহণ করো না।”

[আবু নুয়াইম, হিলিইয়া আল-আউলিয়া ৮: ১৫,১৬]

Advertisements

ইমাম আবু হানিফার রসবোধ

ইমাম আবু হানিফা তার ‘ইলম (জ্ঞান) এবং ‘আমালের জন্য তো বটেই, তিনি তার রসিকতাবোধের জন্যেও সুপরিচিত ছিলেন। একদিন এক ব্যক্তি জিজ্ঞাসা করলো, “হে ইমাম! যখন আমি নদীতে গোসল করি, তখন কি আমি কিবলার দিকে মুখ করবো নাকি কিবলা থেকে মুখ ফিরিয়ে রাখবো?

ইমাম আবু হানিফা গম্ভীরভাবে উত্তর দিলেন, “আমি যদি আপনার জায়গায় থাকতাম তাহলে আমি আমার কাপড়গুলোর দিকে মুখ ফিরিয়ে থাকতাম যেন কেউ সেগুলো নিয়ে দৌড়ে পালাতে না পারে।”

[ইসলামিক অনলাইন ইউনিভার্সিটি ফেসবুক পেজ, ১৬/১০/২০১৪]

অনেকে তার যা আছে তাও হারায়

“হাতের কাছে থাকা সত্ত্বেও অনেকে এই মহাগ্রন্থের দিকে ফিরেও তাকায় না, অনেকে এর দরজায় গিয়েও ফিরে যায়। অনেকেই পড়ে কিন্তু সত্যিকার অর্থে কুরআনের গভীরে প্রবেশ করে না। অনেকে সন্ধান পায় কিন্তু হারিয়ে ফেলে। তারা আল্লাহর শব্দের মধ্যেও আল্লাহকে শুনতে পায় না। আল্লাহর পরিবর্তে তারা নিজেদের কণ্ঠ, নিজেদের শব্দই শুনতে পায়। অনেকে আল্লাহর বাণী শুনতে পায় কিন্তু আল্লাহর ডাকে সাড়া দেওয়ার মত ইচ্ছাশক্তি, দৃঢ়তা, সাহস এবং আল্লাহর পথে চলার শক্তি অর্জনে তারা ব্যর্থ হয়। অনেকে তার যা আছে তাও হারায়, জীবনের মূল্যবান নুড়ি আহরণের পরিবর্তে হাড়ভাংগা পাথরের স্তুপ নিয়ে ফেরে, যা থেকে সারাটি জীবন আঘাতই পেয়ে থাকে।”

— উস্তায খুররম মুরাদ (রহিমাহুল্লাহ)

[কুরআন অধ্যয়ন সহায়িকা, পৃষ্ঠা-২৯]

যারা আল্লাহর উপরে বিশ্বাস রাখে

“যারা আল্লাহর উপরে বিশ্বাস রাখে তাদের জন্য কষ্টকর সকল কাজগুলোই সহজ হয় যায় যখন তারা জানেন যে আল্লাহ তাদেরকে শুনছেন।”

— ইমাম ইবনুল কাইয়্যিম আয-জাওযিয়্যাহ

[আল-ফাওয়াঈদ, পৃ ১১৯]

তোমাদের পূর্বে যারা ছিলেন

“তোমাদের পূর্বে যারা ছিলেন তারা আখিরাতের জীবনের জন্য সাধনা করার পর বাকি চেষ্টাটুকু করতেন দুনিয়ার কাজকর্মের জন্য। কিন্তু আজ তোমরা দুনিয়াবী কাজ শেষ করার পর অবশিষ্ট চেষ্টা করো আখিরাতের জন্য।”

— আওন বিন আবদিল্লাহ

[আবু নু’আইম, হিলইয়াহ আল-আউলিয়া, ১০/২৪২]

আমাদের সমস্যা আধ্যাত্মিকতায়

“আমাদের সমস্যা আধ্যাত্মিকতায়। যদি একজন মানুষ আমার সাথে মুসলিম বিশ্বে কী কী পুনর্গঠন করা প্রয়োজন সেই বিষয়ে কথা বলতে আসেন, অথবা রাজনৈতিক কৌশল সম্পর্কে এবং অনেক বড় কোন ভৌগলিক কৌশলগত পরিকল্পনা নিয়ে কথা বলতে আসেন, তার প্রতি আমার প্রথম প্রশ্ন হবে তিনি ফজরের নামায সময়মত আদায় করেছেন কিনা।”

— সাইদ রমাদান [১৯২৬-১৯৯৫]

আল্লাহ যা আগে থেকেই নির্ধারিত রেখেছেন

“আল্লাহ যা আগে থেকেই নির্ধারিত রেখেছেন সে ব্যাপারে ‘যদি এমনটি না হতো’ বলার চেয়ে উত্তপ্ত লাল কয়লা ঠান্ডা না হওয়া পর্যন্ত কামড়ে ধরে থাকাও আমার কাছে অনেক প্রিয়।”

— আবদুল্লাহ ইবনে মাসউদ (রাদিয়াল্লাহু আনহু)

[আয-যুহদ, আবু দাউদ, পৃ ১৩৬]

মুসলিম বিশ্বের যে সংকট রয়েছে তা হলো জ্ঞানের, তা হলো বুদ্ধিমত্তার

hamza

“আমি আগে ভাবতাম মুসলিম বিশ্বের সংকটটা আধ্যাত্মিক। মুসলিম বিশ্বের যে সংকট রয়েছে তা হলো জ্ঞানের, তা হলো বুদ্ধিমত্তার।”

— শাইখ হামজা ইউসুফ

[রিভাইভিং ইসলামিক স্পিরিট নলেজ রিট্রিট, ২০১৩]

নিয়াতের ব্যাপারে শিখুন কেননা এটা কাজের চাইতেও বেশি গুরুত্বপূর্ণ

“নিয়াতের ব্যাপারে শিখুন কেননা এটা কাজের চাইতেও বেশি গুরুত্বপূর্ণ।”

— ইয়াহইয়া ইবনে আবি কাসির

[জামিউল-উলুম ওয়াল-হিকাম, পৃ ৪]​

কোন কিছুতে বেশি অভ্যস্ত হয়ে পড়বেন না

pass

“কোন কিছুতে বেশি অভ্যস্ত হয়ে পড়বেন না, আগামীকাল সেটা হয়ত বদলে যাবে।”

— উস্তাদা ইয়াসমিন মোগাহেদ

আমি কখন জানতে পারবো যে আমি দ্বীনদার

এক ব্যক্তি আয়েশা রাদিয়াল্লাহু আনহার কাছে এসে জিজ্ঞাসা করলো,
“আমি কখন জানতে পারবো যে আমি দ্বীনদার?”

তিনি উত্তর দিলেন,
“যখন আপনি উপলব্ধি করবেন যে আপনি একজন গুনাহগার।”

সে জিজ্ঞাসা করলো,
“আর আমি কখন বুঝবো যে আমি একজন গুনাহগার?”

আয়েশা (রা) উত্তর দিলেন,
“যখন আপনি মনে করবেন আপনি একজন দ্বীনদার।”

[তানবিহ আল-গাফিলিন, ২৫১]

আনুগত্যই আল্লাহর সাথে সম্পর্কে সৃষ্টির উপায়

“আল্লাহর আনুগত্য করা ছাড়া অন্য কোন মাধ্যমে আল্লাহর সাথে একজন ব্যক্তির কোন সম্পর্ক থাকে না।”

— হযরত উমার (রা)

[তারিখ আত-তাবারী, ৪/৩০৬]

কোন লোক ​যখন পাপ করে

​”কোন লোক ​যখন পাপ করে, অতঃপর সেগুলোকে তুচ্ছ মনে করে এবং অবজ্ঞা করে, সে পাপগুলো বড় পাপের অন্তর্ভুক্ত।”

— ইমাম আল-আউজা’ঈ

[পিউরিফাই মাই হার্ট, তালিব ইবনে টাইসন আল-বিরতানি, পৃ ৫১]​

কখনো কোন অবস্থাতেই দু’আ করা ছেড়ে দিবেন না

“কখনো কোন অবস্থাতেই দু’আ করা ছেড়ে দিবেন না এবং আপনি যা (খারাপ কাজ) করেছেন তাকেও দু’আ করার প্রতিবন্ধকতা হতে দিবেন না। কেননা নিশ্চয়ই আল্লাহ ইবলিসেরও (শয়তান) দু’আ কবুল করেছেন (যখন সে আল্লাহর কাছে চেয়েছে) এবং সে সৃষ্টিসমূহের মাঝে সবচাইতে নিকৃষ্ট।”

“সে বললঃ আমাকে কেয়ামত দিবস পর্যন্ত অবকাশ দিন। আল্লাহ বললেনঃ তোকে সময় দেয়া হল।” [সূরা, আ’রাফ : ১৪-১৫]

— ইমাম সুফিয়ান ইবনে উনাইনাহ (রাহিমাহুল্লাহ)

[আশ-শু’আব, ২/১১৪৭]

যেসব জায়গায় যাচ্ছেন তা আপনার চরিত্রের উপরে প্রভাব রাখবে

​”আপনি যেসব জিনিস দেখছেন, যা শুনছেন এবং যেসব জায়গায় যাচ্ছেন তা আপনার চরিত্রের উপরে প্রভাব রাখবে না –এটা আপনি কিছুতেই ধরে নিতে পারেন না। এগুলো অবশ্যই আপনার চরিত্রকে প্রভাবিত করবে।​”

​– উস্তাদ নু’মান আলী খান ​

মুনাফিকের জ্ঞান তার কথাবার্তার মাঝে, মু’মিনের জ্ঞান তার কাজের মাঝে

“মুনাফিকের জ্ঞান তার কথাবার্তার মাঝে, মু’মিনের জ্ঞান তার কাজের মাঝে।”

— আবদুল্লাহ ইবনে আল-মু’তাজ

[ইকতিদাউ আল ‘ইলমি আল আ’মাল, ৩৮]

যারা দুনিয়ার জীবনকে ভালোবাসে তারা মৃত্যুকে ঘৃণা করে

“যারা এই দুনিয়ার জীবনকে ভালোবাসে তারা সবাই মৃত্যুকে ঘৃণা করে, কিন্তু যারা দুনিয়ার প্রতি নির্লিপ্ত থাকে তারা আল্লাহর সাথে সাক্ষাত হওয়াকে ভালোবাসে।”

— বিশার ইবনে আল-হারিথ

[আস সিয়ার, ১০/৪৭৬]

যদি অন্তর ভ্রষ্ট হয়, চোখের দৃষ্টিও ভ্রষ্ট হয়ে যাবে

“আমাদের চোখ এবং অন্তরের মাঝে একটা সম্পর্ক রয়েছে যার ফলে একটির কারণে অন্যটি প্রভাবিত হয়। এদের একটি যদি ভালো থাকে তাহলে অন্যটিও ভালো থাকে, আবার একটি যদি ভ্রষ্ট হয় তাহলে অপরটিও ভ্রষ্ট হয়ে যায়। যদি অন্তর ভ্রষ্ট হয়, চোখের দৃষ্টিও ভ্রষ্ট হয়ে যাবে, আবার যদি চোখের দৃষ্টি ভ্রষ্ট হয় তাহলে অন্তরও ভ্রষ্ট হয়ে যাবে। একইভাবে, যদি এদের একটি প্রশান্ত থাকে, অপরটিও প্রশান্ত থাকবে।

— ইমাম ইবনুল কাইয়িম (রাহিমাহুল্লাহ)

[আল জাওয়াব আল কাফি — ইবনুল কাইয়্যিম, পৃ ১২৫]

আল্লাহ যখন আপনার জিহবাকে কিছু চাইতে উৎসাহিত করেন

all

“আল্লাহ যখন আপনার জিহবাকে কিছু চাইতে উৎসাহিত করেন,
জেনে নিন তিনি আপনাকে কিছু দিতে চাইছেন।”

—– ইবনু আতা’আল্লাহ আল ইসকান্দারি (রাহিমাহুল্লাহ)

আল্লাহর কাছে অভিযোগ করা মু’মিনের কাজ

be the change

“আল্লাহর কাছে অভিযোগ করা মু’মিনের কাজ,
আল্লাহর নামে অভিযোগ করা শয়তানী কাজ”

— ইমাম ওমর সুলাইমান

অনেক অবিবাহিত ভাইয়েরা মনে করেন বিয়ে মানেই সুখ-শান্তি

“অনেক অবিবাহিত ভাইয়েরা মনে করেন, বিয়ে = সুখ-শান্তি ।

কিন্তু এই ব্যাপারটা সঠিক নয়। আপনি বিবাহিত বা অবিবাহিতই হোন না কেন, আপনি সুখী হতে পারেন। আপনার লক্ষ্য যদি কেবলমাত্র আল্লাহকে সন্তুষ্ট করা হয়, তাহলে আপনার জীবনের ঘটনাগুলো যতই কঠিন হোক না কেন, তিনি আপনাকে যেকোন অবস্থাতেই সন্তুষ্ট থাকার যোগ্য করে দিবেন।

নিঃসন্দেহে, অবিবাহিত থাকার চাইতে দ্বীনদার কাউকে বিয়ে করা অনেক উত্তম। কিন্তু দ্বীনদার এবং উত্তম চরিত্রের মানুষ পাওয়া বেশ কঠিন। অস্থির হয়ে ভুল সিদ্ধান্ত নিবেন না, নইলে হয়ত জীবনের বাকি সময় আপনাকে তার ফল ভোগ করতে হতে পারে।”

— আবু মুওয়াহহিদ

সুত্রঃ pure matrimony fb

দুনিয়া নিয়ে দুঃশ্চিন্তা করা অন্তর হলো অন্ধকারাচ্ছন্ন

“দুনিয়া নিয়ে দুঃশ্চিন্তা করা অন্তর হলো অন্ধকারাচ্ছন্ন,
আখিরাত নিয়ে দুঃশ্চিন্তা করা অন্তর হলো আলোকিত”

— উসমান ইবনে আফফান (রাদিয়াল্লাহু আনহু)

জ্ঞানার্জন ও ধৈর্যধারণ

“জ্ঞানার্জন ছাড়া দিক-নির্দেশনা অর্জন করা যায় না।
আর ধৈর্যধারণ ছাড়া সঠিক পথের দিশা অর্জন করা যায়না।”

– ইমাম ইবনে তাইমিয়া (রহিমাহুল্লাহ)
[মাজমু’আল ফাতাওয়া : ভলিউম ১০/৪০]

আল্লাহকে যারা ভালোবাসেনা, তাদেরকে ভালোবাসবেন না

“আল্লাহকে যারা ভালোবাসেনা, তাদেরকে ভালোবাসবেন না।
তারা যদি আল্লাহকে ছেড়ে থাকতে পারে, তারা আপনাকে ছেড়ে চলে যাবে।”

— ইমাম শাফিঈ (রহিমাহুল্লাহ)

যে কোন দুর্ঘটনা আর সুসংবাদ শুনলে আপনার মুখ দিয়ে কি কি শব্দ বেরিয়ে আসে

যে কোন দুর্ঘটনা আর সুসংবাদ শুনলে আপনার মুখ দিয়ে কি কি শব্দ বেরিয়ে আসে:
সুবহানআল্লাহ্, আলহামদুলিল্লাহ্, আল্লাহু আকবার।
নাকি ইংরেজী কোন অশ্লীল শব্দগুচ্ছ। খেয়াল করুন।
কারণ পরিপূর্ণ সচেতন, সজাগ আর সুস্হ মস্তিষ্কে যেখানে আপনি আপনার মননকে নিয়ন্ত্রন করতে পারছেন না; সেখানে জীবন মৃত্যুর সন্ধিক্ষণে আপনি কিভাবে শাহাদাহ্ দিতে সমর্থ হবেন?

— কামাল এল মাক্কী

আমরা যা শিখছি তা যদি আমাদের বিশ্বাসের উপর কোন প্রভাব ফেলতে না পারে

“আমরা যা শিখছি তা যদি আমাদের বিশ্বাসের উপর কোন প্রভাব ফেলতে না পারে, আমাদেরকে আল্লাহর কাছাকাছি নিয়ে যেতে না পারে, আমাদের বিশ্বাসকে আরো মজবুত করতে না পারে… তাহলে এর অর্থ হচ্ছে আমাদের উদ্দেশ্যে, নিয়্যতে ভুল আছে”

— ড. আবু আমিনাহ বিলাল ফিলিপস

যে সমাজে মানবীয় মূল্যবোধ ও নৈতিকতার প্রাধান্য থাকে সে সমাজই সভ্য সমাজ

“যে সমাজে মানবীয় মূল্যবোধ ও নৈতিকতার প্রাধান্য থাকে সে সমাজই সভ্য সমাজ। মানবীয় মূল্যবোধ ও নৈতিকতা রহস্যময় এবং ব্যাখ্যাতীত কোন বিষয় নয়, না তো তারা ইতিহাসের বস্তুতান্ত্রিক ব্যাখ্যাদানকারী বা বৈজ্ঞানিক সমাজতন্ত্রীদের দাবী অনুযায়ী ‘প্রগতিশীল’ এবং সদা পরিবর্তনশীল এমন কোন বিষয় যার কোন মূল এবং স্থিতিশীলতা নেই। এই মূল্যবোধ এবং নৈতিকতা মানুষের মধ্যে সেসব গুণাবলীর জন্ম দেয় যা তাকে পশু থেকে আলাদা করে এবং মানুষের সেদিকের উপর বেশী জোর দেয় যা তাকে পশুত্বের উর্ধ্বে নিয়ে যায়। এই মানবীয় মূল্যবোধ এবং নৈতিকতা এমন কোন বিষয় নয় যা মানুষের পাশবিক দিকগুলোর বিকাশ সাধন করে এবং সেগুলোর উপর সর্বাধিক গুরুত্ব আরোপ করে”

— উস্তায সাইয়্যেদ কুতুব (রাহিমাহুল্লাহ)